ছাত্রশিবিরের প্রতিবাদ, ‘সশস্ত্র সংগঠন’ বলা অবান্তর

0
67

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বেসরকারি সংস্থা আইএইচএস’র জরিপে ছাত্রশিবিরকে বেসরকারি সশস্ত্র সংগঠনের তালিকার অন্তর্ভুক্ত করে প্রতিবেদন প্রকাশের নিন্দা জানিয়েছে সংগঠনটি।

মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ছাত্রশিবিরের সভাপতি আবদুল জব্বার ও সেক্রেটারি জেনারেল আতিকুর রহমান এ প্রতিবাদ জানান। বিবৃতিটি সংগঠনের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক আবু সালেহ মো. ইয়াহিয়া স্বাক্ষর করেছেন।

এতে শিবির সভাপতি ও সেক্রেটারি বলেন, শীর্ষ ১০টি অস্ত্রধারী সংগঠনের সঙ্গে শিবিরকে তথ্য প্রকাশে আমরা বিস্মিত হয়েছি। ছাত্রশিবির সব সময় এদেশে মত গণতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বিশ্বাসী।

তারা বলেন, তালেবান ও আল কায়েদার মত সংগঠনের পাশাপাশি ছাত্রশিবিরকে অস্ত্রধারী গ্রুপ হিসেবে তালিকাভুক্ত করা হলেও এ সংশ্লিষ্ট কার্যক্রমের কোনো বর্ণনা সংস্থাটি দিতে পারেনি। উল্টো তারাই স্বীকার করেছে ‘উন্মুক্ত সূত্র’ থেকে তারা এ প্রতিবেদন করেছে, যা কোনোভাবে গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।

শিবিরের এই দুই শীর্ষ নেতা বলেন, ‘আমরা সুস্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, যাত্রা শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত ছাত্রশিবিরের উপরে অসংখ্য সশস্ত্র হামলা ও শিবির নেতাকর্মীদের হত্যাকাণ্ডের জন্য বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকারের ছাত্রসংগঠন সরাসরি সম্পৃক্ত। এ পর্যন্ত বিভিন্ন সন্ত্রাসী ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে যে ক’টি বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছিল, সে সব তদন্ত কমিটির রিপোর্টে সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য সৃষ্টির জন্য ছাত্রলীগসহ প্রতিপক্ষ ছাত্রসংগঠনসমূহকেই দায়ী করা হয়েছে। সরকার দলীয় ছাত্রসংগঠন ছাত্রলীগই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য সৃষ্টি করে চলেছে। অথচ কোনো তথ্য-প্রমাণ ছাড়াই শিবিরকে অস্ত্রধারী গ্রুপে তালিকাভুক্ত করা সম্পূর্ণ অবান্তর।’

তারা এটিকে ছাত্রশিবিরের বিরুদ্ধে পরিকল্পিত অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র বলে উল্লেখ করেন। বলেন, দেশে-বিদেশে ছাত্রশিবিরের অর্জিত সুনাম ক্ষুণ্ন করতেই এ ধরনের প্রতিবেদন ও তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে।

শিবির সভাপতি ও সেক্রেটারি বলেন, কোনো ধরনের সন্ত্রাসের সঙ্গে ছাত্রশিবিরের দূরতম সম্পর্ক নেই। একটি সন্ত্রাসমুক্ত, গণতান্ত্রিক ও শান্তিকামী ছাত্রসংগঠন হিসেবে দেশে-বিদেশে ছাত্রশিবিরের যথেষ্ট পরিচিতি রয়েছে। সৎ, দক্ষ ও দেশপ্রেমিক নাগরিক তৈরির মাধ্যমে একটি সুখি-সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ বিনির্মাণই ছাত্রশিবিরের স্বপ্ন। এ স্বপ্ন পূরণে প্রতিষ্ঠালঘ্ন থেকেই সম্পূর্ণ নিয়মতান্ত্রিক, গঠনমূলক ও শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি হাতে নিয়ে সামনে এগিয়ে চলছে ছাত্রশিবির।